Page View: 1,114,326 | Online: 3
child.oldagecare@gmail.com +88 01620 555222

বৃদ্ধাশ্রম থেকে ‘মা’কে নিয়ে আবারও রাস্তায় ফেলে গেলো স্কুল শিক্ষিকা মেয়ে

posted: 22 Oct 2020 | By: 2

এক সন্তানের জননী নূর মেহের বানু (৬০)। বাড়ি নারায়নগঞ্জে আড়াইহাজারে হলেও থাকতেন রাজধানীর মুগদা এলাকায়। স্বামী মারা যাওয়ার পর থেকে অনেক কষ্ট একমাত্র মেয়ে শামিমাকে মানুষ করেছেন। তারপর চাকরি হয় স্থানীয় এক স্কুলে । এর মধ্যে বিয়ে দিয়েছিলেন স্থানীয় মনির হোসেন নামে এক ব্যবসায়ীর কাছে।




মা নূর মেহের বানু অসুস্থ হয়ে গেলে বেশিদিন ঠাঁই হয়নি মেয়ের পরিবারে। কিছুদিন থাকার পর স্বামীসহ মেয়ের অমানুষিক নির্যাতন সহ্য হয় তাকে। ২০১৭ সালের শেষের দিকে মা নূর মেহের বানু কে ফেলে যায় রাস্তায়। সেখান থেকে খবর পেয়ে উদ্ধার করে মিরপুরের বৃদ্ধাশ্রম চাইল্ড এন্ড ওল্ড এইজ কেয়ার।

২০১৯ সালের রোজা ঈদের আগে তার মেয়ে শামিমা বৃদ্ধাশ্রম থেকে তার মাকে নিয়ে যায়। ১৩ মাস পর অর্থ্যাৎ ২০২০ সালের ২২ আগষ্ট আবারও নির্যাতন করে আবারও গভীর রাতে মুগদা পানির ওয়াসার পাশে ফেলে রেখে যায়। পরবর্তীতে স্থানীয় ওয়াসার কর্মচারীদের সহায়তায় আবারও ঠাঁই হয় এই বৃদ্ধাশ্রমেই।

চাইল্ড এন্ড ওল্ড এইজ কেয়ারের পরিচালক মিল্টন সমাদ্দার বার্তা বাজারকে জানান, নূর মেহের বানু আমার আশ্রয়ে অনেকদিন ছিলেন। ওনার মেয়ে একপ্রকার জোর করেই আমার কাছ থেকে নিয়েছিলো। আর নেয়ার সময় আমার কাছে প্রতিজ্ঞা করেছিলো যে আর কখনও অত্যাচার নির্যাতন করবে না। আর ১৩ মাস আগে আমি যে কাপড় দিয়েছিলাম সেই কাপড়গুলোই সাথে ছিলো। তার মেয়ে-মেয়ের স্বামী একটা কাপড়ও কিনে দেয়নি।

এ ব্যাপারে অভিযুক্ত মেয়ে ও তার স্বামীর সাথে কয়েকদফায় যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলেও তাদের বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

চাইল্ড এন্ড ওল্ড এইজ কেয়ারে ৭৫ জন মা-বাবা আছে যারা একেবারেই পরিবার থেকে বিতারিত। তাদের দিয়েই মিল্টন সমাদ্দারের একটি পরিবার। বর্তমানে সেখানে ৬৬ জন বৃদ্ধ-বৃদ্ধা ও ৯ জন প্রতিবন্ধী শিশু আছে। আগে সাধারণ মানুষের সহায়তা পেলেও করানোভাইরাসে পুরোপুরি বন্ধ সেটি। এতে বিপাকে বৃদ্ধাশ্রমের অসহায় মানুষগুলো।

এ অবস্থায় বিত্তবানদের সহযোগিতায় চেয়েছেন মিলটন সমাদ্দার। কেউ সাহায্য করতে চাইলে যোগাযোগ করতে পারেন ০১৬২০৫৫৫২২২ নম্বরে।


For Emergency Call

+88 02 58050680, +88 01620 555222

Creating Document, Do not close this window...